আকাশ নীলা

আকাশ নীলা তুমি বল কিভাবে
আমার শূণ্য মনে সুখ ছড়াবে
এমন করে কি তবে ভেবেছ আগে
ভালোবাসা দিয়ে ভূল ভাঙ্গাবে ।
কথা দাও, কথা দাও, কথা দাও
বুঝবে আমায়,
কথা দাও, কথা দাও, কথা দাও
আজীবন আমারি রবে ।
খুজতে, যদি আজ খুজতে
বুঝতে তবে এ মন বুঝতে
জীবনে কত যে দুঃখ লুকানো
তুমি তা জানতে চেওনা
কত সে নির্মম বেদনা ।
জানতে, যদি একটু জানতে
কি ক্ষত বুকে আমার, মানতে
লুকানো ব্যাথা হাসির আড়ালে
তুমি তা জানতে চেওনা
কত সে নির্মম বেদনা ।

এতটা ভালবাসি

যখন নিঝুম রাতে
সব কিছু চুপ,
নিষ্প্রাণ নগরীতে
ঝিঝিরাও ঘুম!
আমি চাঁদের আলো হয়ে,
তোমার কালো ঘরে;
জেগে রই সারা নিশি
এতটা ভালবাসি….(২)
এ কি অপরূপ সুন্দর
তার স্বপ্নের বর্ষা রাতে;
আমি ভিজে ভিজে মরি
মিছে মগ্ন প্রভাতে…
দেখি ভিষণ অন্ধকার মাঝে
আলো ছায়ায় তার নূপুর বাজে!
আমি যে ভেবে ভেবে শিহরিত…
আমি সূর্যের আলো হয়ে
তোমার চলার পথে
ছায়া হয়ে তোমায় দেখি
এতটা ভালবাসি।
হুম….. এতটা ভালবাসি….

আজ রাতে কোন রূপ কথা নেই

চাঁদমামা আজ বড্ড একা
বড় হয়েছি আমি
রোজ রাতে আর হয়না কথা
হয়না নেয়া হামি
রোজ রাতে আর চাঁদের বুড়ি
কাটেনা চরকা রোজ
ও বুড়ি, তুই আছিস কেমন
হয়না নেওয়া খোঁজ
কোথায় গেলো সে রুপকথার রাত
হাজার গল্প শোনা
রাজার কুমার, কোটাল কুমার, পঙ্খীরাজ
সে ঘোড়া
কেড়ে নিলো কে সে আজব সময়
আমার কাজলা দিদি
কে রে তুই, কোন দৈত্যদানো
সব যে কেড়ে নিলি
কেরে তুই, কেরে তুই
সব সহজ শৈশবকে
বদলে দিলি
কিছু যান্ত্রিক বর্জ্যে
তুই, কে রে তুই
যত বিষাক্ত প্রলোভনে
আমায় ঠেলে দিলি
কোনো এক ভুল স্রোতে
আলাদিন আর জাদুর জীনি
আমায় ডাকছে শোনো
ব্যস্ত আমি ভীষণ রকম
সময় তো নেই কোনো
আলীবাবার দরজা খোলা
চল্লিশ চোর এলে
সিনবাদটা, একলা বসে
আছে সাগর তীরে
সময়টা আজ কেমন যেন
বড় হয়ে গেছি আমি
তারাগুলো আজও মেঘের আড়াল
কোথায় গিয়ে নামি
কেড়ে নিলো কে সেই………

মন শুধু মন ছুঁয়েছে

মন শুধু মন ছুঁয়েছে
ও সেতো মুখ খুলেনি
সুর শুধু সুর তুলেছে
ভাষা তো দেয় নি
চোখের দৃষ্টি যেন মনের গীতি কবিতা
বুকের ভালোবাসা যেথায় রয়েছে গাঁথা
আমিতো সেই কবিতা পড়েছি
মনে মনে সুর দিয়েছি
কেউ জানে নি
যখনি তোমার চোখে আমার মুখ খানি দেখি
স্বপনও কুসুম থেকে হৃদয়ে সুরভি মাখি ।।
তুমি কি সেই সুরভি পেয়েছো
স্বপনের দ্বার খুলেছো
কিছু জানিনি
মন শুধু মন ছুঁয়েছে ও সেতো মুখ খুলেনি
সুর শুধু সুর তুলেছে ভাষা তো দেয় নি

আকাশ-পৃথিবী

হৃদয়ের শাদা রঙটুকু সব
হয়েছে কেবলই নোনা৷
না-পাওয়ার চাপা আর্তনাদে,
অবেলায় ঝড়া পাতা৷
আকাশ-পৃথিবী আর ঘড়ির কাঁটা,
অসম এই বোঝাপড়া৷
ভালোলাগার নয়নতারাগুলো মাঝে,
দিলোনা আমায় কোনো ভালোবাসা৷
সূর্যের স্পর্শে অভিমান জানি
হবেনা কখনো ছোঁয়৷
অবুঝ-বোবা হয়ে ক্লান্তি ফিরে
নি:শ্বাসে বাড়ায় নীরবতা৷

কোন কারণেই

কোন কারণেই, কোন কারণেই
ফেরানো গে্লোনা তাকে
ফেরানো গেলোনা কিছুতেই
কোন বাঁধনেই, কোন বাঁধনেই
বাঁধাতো গেলোনা তাকে
বাঁধাতো গেলোনা কিছুতেই
সে যে হৃদয় পথের রোদে
একরাশ মেঘ ছড়িয়ে
হারিয়ে গেল নিমেষেই।।
কি কারণ যায়নি সে বলে
কি ভূল আমি, করেছি ভূলে
অজস্র বার আমি ক্ষমা চেয়েছি নিজে জ্বলে।
নিঃসিম আধারে পথ চলা
নিজের সাথেই কথা বলা,
বিষন্নতার, বন্ধু যখন চেতনাতে।
সে যে হৃদয় পথের রোদে
একরাশ মেঘ ছড়িয়ে
হারিয়ে গেল নিমিষেই।।